শিবধামে না এসে, জল, তেল, ধুপ পড়ে নিন বাড়িতে বসে। (shivdham kolkata-jol,tel,dhup,korpur, bidhi)

আমরা সবাই জানি ভুতমুক্তি কেন্দ্র শিবধাম (shivdham kolkata), দমদম, কোলকাতা আমাদের মাঝে অপার কৃপা নিয়ে হাজির হয়েছে। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ ধামে এসে ও না এসেও শুধুমাত্র বাড়িতে নিয়মানুযায়ী ধামের ছবি প্রতিষ্ঠা করে ধাম থেকে কৃপা পাচ্ছেন।

ধামের ফেসবুক ও ইউটিউব চ্যানেলে নিয়মিত কৃপাপ্রাপ্ত ভক্তদের ভিডিও আপলোড করা হয়। যারা অত্যন্ত ভাগ্যবান বলেই ধামে যাওয়ার সুযোগ পেয়ে থাকেন বলে আমার বিশ্বাস। আপনি যদি কখনো ধামে না গিয়ে থাকেন বা ইচ্ছা রাখেন ধামে যাবার তবে আপনাকে বলব, ধৈর্য্য রাখুন ও বাবার দেওয়া শিবধামের “ওম নম শিবায় শক্তিরূপে গুরুপীরানন্দম নমঃ ওম” মহামন্ত্রটি খেতে, নিতে, শুতে, পথ বেয়ে যেতে যখন যেখানে পারবেন শুদ্ধ স্থানে ও বস্ত্রে জপ করে যান ও বাবাকে আপনার প্রার্থনা জানান।

শিবধাম এমন একটি আশির্বাদের নাম যা আপনাকে ধামে না গিয়েও কৃপা করবেন। শুধুমাত্র পরিস্কার মন, স্থান ও বস্ত্রে দিনে যতবার খুশি জপ করুন। চলুন জেনে নিই কিভাবে ধামে না গিয়েও আপনি কৃপা লাভ করতে পারেন।

প্রথম ধাপ:

প্রথমত আপনাকে শিবধামের (shivdham kolkata) নিয়ম অনুযায়ী শিবধামের ছবি প্রতিষ্ঠা করতে হবে। ছবি কিভাবে প্রতিষ্ঠা করবেন যদি না জানেন, তাহলে এখানে ক্লিক করুন

দ্বিতীয় ধাপ:

নিয়ামানুযায়ী শিবধামের ছবি প্রতিষ্ঠার পর ধামের ছবির সামনে কাঙ্খিত জল/ধুপ/তেল/শঙ্খগুলি অর্থাৎ আপনি যা পড়ে নিতে চান একটি পরিস্কার পাত্রে রাখুন। ধরুন আপনি সরষের তেল পড়ে নেবেন সেক্ষেত্রে পরিস্কার একটি পাত্রে তেল নেবেন ও তাতে কর্পূর মেশাবেন। গুঁড়া কর্পূর হলে ভাল হয় যদি না পান তবে গোটা কর্পূর গুঁড়া করে মিশিয়ে নেবেন। অবশ্যই বোতলের মুখ খোলা রাখুন। এরপর শিবধামের মহামন্ত্রটি ১০৮ বার মানসিক জপ করুন। (আপনি চাইলে বেশিও জপ করতে পারেন)। এরপর শিবধামের প্রার্থনাটি পাঠ করুন ও মনে মনে শ্রদ্ধাভরে বাবাকে আপনার মনকামনা/সমস্যার কথা জানান। এবং বাবাকে অনুরোধ করুন তার সামনে নিবেদন করা জল/ধুপ/তেল/শঙ্খগুলি এসে পড়ে দিয়ে যেতে।

প্রার্থনা শেষে প্রায় ৪০ মিনিট ধরে ছবির সামনে আপনার জল/তেল/ধুপ রেখে দিন। সন্ধ্যা ৬টা থেকে ০৭ টার মধ্যে এই সকল ক্রিয়া করলে দ্রুত ফল লাভ করবেন। ৪০ মিনিট পর পুজা শেষে জল/তেল/ধুপ তুলে নিন ও নিয়মমত ব্যবহার করুন।

শিবধাম (shivdham kolkata) পড়া জল/ধুপ/তেল/প্রভৃতি ব্যবহার বিধি:

ছেঁটানো গঙ্গাজল বিধি:

প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬-৭ টার মধ্যে প্রতিটি ঘরে শিবধামের নাম স্মরণ করে জল ছিঁটিয়ে দেবেন।

ধুপকাঠি বিধি:

প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬-৭ টার মধ্যে মনের কথা বলে ৩ টি করে ধুপকাঠি জ্বালাবেন, সাথে শিবধাম মন্ত্র জপ করবেন ও খেয়াল রাখবেন যেন ধুপকাঠি পড়ে/ভেঙ্গে/নিভে না যায়। প্রয়োজনে ভাল ধুপকাঠি ব্যবহার করুন।

খাবারজল বিধি:

প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ধামের নাম স্মরণ করে জল খেতে হবে ও ০৯ দিনের মধ্যে শেষ করতে হবে ও ২৭ দিন পর্যন্ত খেতে থাকতে হবে। অর্থাৎ আপনি প্রতি বার এমনভাবে জলের পরিমাণ নির্ধারণ করে পড়ে নিন যেন তা ০৯ দিনে মধ্যে সহজেই খেয়ে শেষ করতে পারেন। তারপর আবার ০৯ দিনের জন্য পড়ে নেবেন তারপর আবার ০৯ দিন । অর্থাৎ কমপক্ষে ০৩ বার ০৯ দিনের ডোজে আপনাকে জল পড়ে নিয়ে খেতে হবে। আপনি একবারে ০৩ বোতল জল একদিনে পড়ে নিতে পারেন। রাখবেন ৯ দিনের একদিন আগেও যেন শেষ না হয় বা পরেও যেন শেষ না হয়। অর্থাৎ নবম দিন পর্যন্ত আপনাকে জলটি খেতে হবে ৮ম দিনে সব শেষ করলেও হবেনা বা দশম দিনেও হবেনা। এই নয় দিনের মধ্যে যেন কোন দিন বন্ধ না যায়। একটানা নয় দিন খাবেন।

কোন ভাবেই জলটি যেন মাটিতে বা গায়ে না পড়ে। খুব সাবধানে সতর্কতার সাথে খাবেন যেন নষ্ট না হয়।

তেল ও কর্পূর বিধি:

প্রতিদিন স্নানের পরে শরীরের বাহ্যিক স্থানে ধামের নাম করে লাগাতে হবে। সতর্ক থাকবেন কোনভাবেই যেন পায়ের নীচে বা মাটিতে যেন না পড়ে। সেক্ষেত্রে হাতের তালুতে তেল নিয়ে সাবধানে শরীরের বাহ্যিক স্থানে ধামের নাম করে লাগাবেন। আপনারা চাইলে বাবাকে নিবেদিত বেলপাতা/ফুল বাবার চরণ থেকে তুলে তেলে মধ্যে দিয়ে রেখে দিতে পারেন।

উপসংহার:

সবশেষে সবার সুস্বাস্থ্য ও মঙ্গল কামনা করছি। মন থেকে মহাদেব কে ডাকুন। তার শরণাগত ও নিবেদিত হউন। কুপথ-কুচিন্তা ছাড়ুন। শুদ্ধ মনে, শুদ্ধ বস্ত্রে বাবাকে ডাকুন। তিনি অবশ্যই কৃপা করেন, করছেন, করবেন। তাঁকে ভরসা করুন।

এই লেখাটি আপনার এতটুকু কাজে আসলে শেয়ার করে সবার কাছে পৌছে দিন। ধন্যবাদ। হর হর মহাদেব। জয় শিবধাম।